ঘরোয়া উপায়ে রূপচর্চা

ফিচারড ডেস্ক >>সুন্দর রূপ আর ত্বক বরাবরই আমাদের কাছে পরম আরাধ্যের বিষয়। বিশেষত গোটা নারী জগতের কাছে সৌন্দর্য মানেই সুন্দর হয়ে থাকা, ত্বক আর রূপ সুন্দর হওয়া। এর জন্য তাদের ত্বক পরিচর্চার কোনো শেষ নেই। যুগ যুগ ধরে ত্বক পরিচর্চার জন্য ঘরোয়া বিভিন্ন উপকরণের ব্যবহার হয়ে আসছে। এটা সর্বজনসিদ্ধ এবং কার্যকর বলে আমাদের কাছে বিবেচিত। কিন্তু এই উপাদানগুলো যে আমরা চোখ বন্ধ করে ব্যবহার করি, তা আসলে কতোটা উপকারী, বা এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে আমরা কমই ভাবি। বিবিসি সম্প্রতি বিশ্বসেরা কয়েকজন বিউটি এক্সপার্টদের সঙ্গে কথা বলে রূপচর্চার উপকরণ এবং বিভিন্ন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ‍নিয়ে প্রতিবেদন তুলে ধরেছে। সেই প্রতিবেদন নিয়ে থাকছে আলোচনা।

 

বেসন

 

ত্বকের আর্দ্রতায় ঘি, ত্বক মসৃণ করতে বেসনের ব্যবহার অনেকেই জানেন। বেসন পানি দিয়ে মাখিয়ে পেস্ট সেগুলো ত্বকে মাসাজ করতে হবে। কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে। আর ছোলা দিয়ে বানানো বেসন হয়ত ত্বক মসৃণ করতে কিছুটা আসতে পারে। কিন্তু দেখুন এগুলোতো ত্বকে লাগানোর জন্য বানানো হয়না। তাই রূপ চর্চায় এর ব্যবহারে সতর্ক থাকতে হবে।

 

কিন্তু প্রসাধন বিজ্ঞানী ফ্লোরেন্স আদেপজু বলছেন, “ঘি খুব আঠালো বস্তু। এতে যে উচ্চমাত্রায় চর্বি রয়েছে যা ত্বকের লোমকূপ বন্ধ করে দিতে পারে। আমি বিউটি টিপ হিসেবে এটিকে না বলবো। ”

 

নরম চুলের জন্য ডিম

 

খসখসে চুল আমাদের অপছন্দ। শ্যাম্পুর পরে কন্ডিশনার দিলে চুল নরম হয় বলে বিউটিশিয়ানরা এবং আমরা মনে করি। আর চুলে ডিম মাসাজ করে তা ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধোয়ার পর চুল নরম হয়, আমাদের বিশ্বাস সেটি। আমাদের চুলের ভেতরটাতে রয়েছে প্রোটিন। আমাদের শরীরে সঠিক পরিমাণে প্রোটিন থাকলে সেটি চুলের গোঁড়াকে শক্ত করে। এতে চুল ভাঙা বা আগা ফাটা কমে। তবে ডিমে যে প্রোটিনের অণু রয়েছে তা চুলের কাণ্ডের জন্য অনেক বড়। ক্ষতিগ্রস্ত চুল মেরামতে তা কাজ করে এ নিয়ে তাই দ্বিমত রয়েছে।

 

লেবুর রসে শরীরের লোম ব্লিচ করা

 

শরীরের লোম বেশি হলে সেগুলো দেখতে ভালো নাও লাগতে পারে। তাই অনেকেই হাত, পা ও মুখমণ্ডলের ত্বকের অতিরিক্ত লোম তুলে ফেলেন। আবার অনেকে পাতলা লোম ব্লিচ বা সাদা করেন। লেবুর রস দিয়ে ব্লিচ করে অনেকেই। অনেকে লেবুর রসে মধু মিশিয়ে লোমের উপর লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে রোদে বসে থাকলে লোমের রঙ হালকা হয় বলে বিশ্বাস করেন অনেকে। এটি কার্যকর হলেও ক্ষতিকর হতে পারে। ত্বকে মধু মিশ্রিত লেবুর রস লাগিয়ে রোদে বসে থাকলে সূর্যের আলোতে ত্বক পরিমাণে পুড়ে যাবে। তাই শরীরের লোমকে সহজভাবে নেওয়ার পরামর্শ দেন বিউটি এক্সপার্টরা।

 

চুল চকচকে করতে ভিনেগার

 

ঘন কালো চুল প্রতিটি মানুষেরই রীতিমতো স্বপ্ন। এজন্য কতোকিছুই তো ব্যবহার করতে হয় চুলে। এই যেমন এক বাটি হালকা গরম পানিতে ভিনেগার গুলিয়ে তা দিয়ে সপ্তাহে অন্তত একবার চুল ধুলে চকচকে কালো চুল পাওয়া যায়। ভিনেগারের পরিষ্কার করার ক্ষমতা রয়েছে। এতে থাকা অ্যাসিড চুলে যেকোনো ময়লা পরিষ্কার করে। তাতে চুল চকচক করবেই। অ্যাসিড চুল মসৃণও করে। তবে শুষ্ক চুলে এটি ব্যবহার করা উচিত নয়। এতে চুল ভাঙার ভয় থাকে।

 

সূত্র: বিবিসি বাংলা

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *